গৃহবধূকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে শ্লীলতাহানি

আড়াইহাজার প্রতিনিধি: আড়াইহাজারে এক গৃহবধূকে জোরপূর্বক রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে একটি ঘরে আটকে রেখে শ্লীলতাহানি করার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

শুক্রবার (২ এপ্রিল) এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে চার যুবককে আসামি করে আড়াইহাজার থানায় একটি মামলা করেছেন। এর আগে বুধবার বিকাল ৩টায় স্থানীয় আগুয়ান্দী এলাকায় এই শ্লীলতাহানির ঘটনাটি ঘটে। এই ঘটনায় স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের চাপে তিনি আইনি সহযোগিতা নিতে পারছিলেন না বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

খবর পেয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের এএসপি (সার্কেল ‘গ’) আবির হোসেন ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন।

অভিযুক্তরা হলেন আগুয়ান্দী এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে তবারক (৩৫), একই এলাকার মৃত রুস্তম মিয়ার ছেলে মামুন (২৫), অজ্ঞাত পরিচয়ের মাসুম (২৫) ও কাসেম মিয়ার ছেলে সবুজ (২৩)। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি।

মামলায় বিবরণ থেকে জানা যায়, ৩১ এপ্রিল বিকাল ৩টার দিকে ভুক্তভোগী নারী তার নিকট আত্মীয় এক যুবকের সাথে ব্যক্তিগত কাজে স্থানীয় বাজারের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন। বাজারের পূর্ব পার্শে¦র রাস্তায় আগুয়ান্দী এলাকায় মামুন, মাসুম ও সবুজ তাদের গতিরোধ করে তবারকের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তাদের আলাদা কক্ষে আটকে রেখে মারধর করে। অভিযুক্তরা তার হাত ধরে টানাটানি করে শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে স্পর্শ করে।

ভুক্তভোগীর সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বাজারে আমার ভাইয়ের বন্ধু আল আমিনকে কিছু টাকার দেয়ার জন্য যাই। আগুয়ান্দী এলাকায় আমার গতিরোধ করে তারা আমাকেসহ আমার এক নিকট আত্মীয়কে জোরপূর্বক রিকশা করে তুলে নিয়ে যায়। দুইজনকে দুই কক্ষে আটকে রেখে মারধার করে। এক পর্যায়ে তারা সংবদ্ধ হয়ে আমাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। ব্যর্থ হয়ে আমার শীরিরের বিভিন্ন স্থানে স্পর্শ করে।

তিনি বলেন, এ সময় আমার সাথে থাকা ১০ হাজার টাকা এবং আমার সঙ্গীর কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায় তারা।

আড়াইহাজার থানায় ওসি’র দায়িত্বে থাকা ওসি (তদন্ত) আনিসুর রহমান মোল্লা বলেন, নির্যাতিতা নারীর পক্ষ থেকে একটি মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান চলছে।

Please follow and like us: