‘ক্ষমতায় যেতে খালেদার ষড়যন্ত্রের প্রয়োজন হয় না’

রুদ্রবার্তা২৪.কম: রাষ্ট্র পরিচালনায় যেতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কোনও দেশ বা ব্যক্তির সঙ্গে ষড়যন্ত্রের প্রয়োজন হয় না বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
রবিবার (৩০ জুলাই) দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
খালেদা জিয়া পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই এবং সেখানকার জামায়াতে ইসলামীর নেতাদের সাথে বৈঠক করেছেন-একটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত এমন খবরকে মিথ্যা ও বানোয়াট বলেও দাবি করেন ফখরুল। বিএনপি বলছে, এটি একটি দূরভিসন্ধিমূলক চক্রান্ত।
মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া চিকিৎসা এবং পরিবারের সদস্যদের সাথে সময় কাটাতে লন্ডন অবস্থান করছেন। চিকিৎসা শেষে যথাসময়ে দেশে ফিরে আসবেন। কিন্তু দুঃখ ও উদ্বেগের বিষয় হচ্ছে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দসহ সরকারের মন্ত্রীরা বলতে শুরু করেছেন খালেদা জিয়া মামলার ভয়ে পালিয়েছেন। বিচারাধীন বিষয়ে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পদ থেকে এ ধরনের বক্তব্য অবশ্যই ন্যায় বিচারের অন্তরায়।’
হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্র পরিচালনায় বিএনপির জয়লাভে খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের কোনও ষড়যন্ত্রের প্রয়োজন হয় না। বরং খালেদা জিয়া জনগণের অধিকার আদায়ে আজীবন সংগ্রাম করে চলেছেন। এটা স্পষ্ট অতীতে রাষ্ট্র পরিচালনায় যেতে কারা, কার সাথে ষড়যন্ত্র চক্রান্ত করেছে সে বিষয়ে সকলেই অবগত।’
ইসি সংলাপে যোগ দেয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে দলটির মহাসচিব বলেন, ‘সিইসির ভূমিকা নিয়ে আমরা ইতিমধ্যে প্রশ্ন তুলেছি। বর্তমানে দেশে একটাই সমস্যা আর সেটা হচ্ছে রাজনৈতিক সংকট। আর সে জন্য আমরা বারবার বলে আসছি- নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের কথা। কারণ এটাও জানি এই সরকারের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করা কঠিন। এক কথায় অসম্ভব।’
অপর এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের দাবি পাশ কাটাতেই আওয়ামী লীগ ষড়যন্ত্র করে চলেছে। তারা সংবিধানের দোহাই দিচ্ছে। অথচ সংবিধান এমন কিছুই নয় যেটা প্রয়োজনে পরিবর্তন করা যাবে না।’
খালেদা জিয়া কবে দেশে ফিরবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘চিকিৎসা ইতিমধ্যে শুরু করা হয়েছে। দেশে কবে ফিরবেন বলা মুশকিল। দেশে ফিরে আসা নির্ভর করছে চিকিৎসকের সিদ্ধান্তের ওপর।’
সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সঞ্জিব চৌধুরী, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান শিরিন,সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, আব্দুল আউয়াল খান, নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

Please follow and like us: