নামফলক ভাঙার প্রতিবাদ: দ্বিতীয় দিনের কর্মবিরতিতে জেলা পরিষদ

রুদ্রবার্তা২৪.নেট: সোনারগাঁ জিআর ইনস্টিটিউশনে নামফলক ভাঙার প্রতিবাদে দ্বিতীয় দিনের মতো কর্মবিরতি পালন করেছে জেলা পরিষদের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। বুধবার (২৫ নভেম্বর) দ্বিতীয় দিনের মতো পরিষদ প্রাঙ্গণে সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত এক ঘন্টার কর্মবিরতি পালন করতে দেখা গেছে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী মো. ওয়ালীউল্লাহ, প্রশাসনিক কর্মকর্তা কেএম রাশেদুজ্জামান, উপসহকারী প্রকৌশলী কাঞ্চন কুমার পালিত, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মঞ্জুরুল আলম, উচ্চমান সহকারী মীর মাহমুদা খানম, নমিতা মল্লিক, সার্ভেয়ার রকিবুল হাসান, অফিস সহকারী মিলন হোসেন, হারুন অর রশিদ, কম্পিউটার অপারেটর হারুন প্রমুখ। এ সময় সকলেই কালো ব্যাজ ধারণ করেন। এই কর্মসূচি চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত।
সোনারগাঁ জিআর ইনস্টিটিউশনে জেলা পরিষদের নামফলক ভেঙে ফেলার প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার থেকে শুরু হয় এ কর্মসূচি। স্থানীয় সাংসদ (নারায়ণগঞ্জ-৩) লিয়াকত হোসেন খোকার নির্দেশে তার লোকজন ওই নামফলক ভেঙেছেন বলে অভিযোগ। এ ঘটনায় ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত ওই সাংসদের অনুকূলে অর্থ বরাদ্দ বন্ধ রাখারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা পরিষদ।
জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী মো. ওয়ালীউল্লাহ সংবাদকে বলেন, সোনারগাঁ জিআর ইনস্টিটিউশনে জেলা পরিষদের অর্থায়নে নির্মিত গেইট ওয়াল ও সীমানা প্রাচীরে সাঁটানো নামফলক ভেঙে ফেলা হয়েছে। স্থানীয় সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকার নির্দেশে তার লোকজন এটি ভেঙেছে। এই ঘটনার পর ২৩ নভেম্বর জেলা পরিষদের জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ, টানা তিনদিন এক ঘন্টা কর্মবিরতি, কালো ব্যাজ ধারণ ও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এছাড়া নামফলক ভাঙার ঘটনায় ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত ওই সাংসদের অনুকূলে অর্থ বরাদ্দ বন্ধ রাখারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা পরিষদ।
প্রসঙ্গত, গত ১৭ নভেম্বর সোনারগাঁ জিআর ইনস্টিটিউশনে সাঁটানো জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের নাম সম্বলিত ফলক ভেঙে ফেলা হয়। অভিযোগ রয়েছে, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার উপস্থিতিতে তার নির্দেশে অনুসারী লোকজন এটি ভেঙেছেন। নামফলক ভেঙে ফেলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ শহর ও সোনারগাঁয়ে একাধিক বিক্ষোভ ও সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ২১ নভেম্বর মহানগর আওয়ামী লীগের এক মানববন্ধনে সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকার কুশপুত্তলিকা পোড়ানো হয়।

Please follow and like us: