আইভীকেই আবার মেয়র হতে অনুরোধ করতে পারি: সেলিম ওসমান

রুদ্রবার্তা২৪.নেট: নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ একেএম সেলিম ওসমান বলেছেন, নারায়ণগঞ্জের মেয়রের চেয়ারে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করছেন ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তার ভালো কাজের জন্য আমরা তাকে আবারও মেয়র হতে অনুরোধ করতে পারি। সুন্দর নারায়ণগঞ্জ গড়ার লক্ষ্যে মানুষের শান্তির জন্য শীঘ্রই মেয়রের সাথে আলোচনায় বসার কথাও জানান সাংসদ সেলিম ওসমান।
বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় নতুন পালপাড়া পুনঃ নির্মিত সার্বজনীন পূজা মন্দিরের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম সেলিম ওসমান এই কথা বলেন।
তিনি বলেন, ‘আমি ইতিমধ্যে সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সঙ্গে আলাপ করেছি। নারায়ণগঞ্জের মানুষ যাতে সুখে থাকতে পারে সে আলোচনার জন্য আমরা খুব তাড়াতাড়ি বসার ব্যবস্থা করবো। আমরা অনেক ঝগড়া করেছি। অনেক গালমন্দ করেছি। আমরা জানি না আগামীতে কাকে আনবো। এমনও হতে পারে, তার ভালো কাজের জন্য তাকেই আমরা মেয়র হতে আবারও অনুরোধ করবো। কারণ এত দীর্ঘ সময় একটা মানুষ যে চেয়ারে আছেন তিনি অনেক কিছু শিখতে পারেন।’
সেলিম ওসমান বলেন, ‘প্রতিটা ইউনিয়নে একটা স্কুল বানানোর চেষ্টা করেছি। ভবিষ্যত প্রজন্মকে গড়ে তুলতে হবে। যেকোনো অনুষ্ঠানে আমরা একত্রে বসতে পারি৷ আলোচনা করতে পারি, আনন্দ করতে পারি। হিন্দু-মুসলমান একত্রে মিলেমিশে আমরা থাকি।’
করোনা সংক্রমন রোধে সাধারণ মানুষের সচেতনতা জরুরি প্রয়োজন উল্লেখ করে সাংসদ বলেন, ‘অনেকেই মাস্ক ব্যবহার করছেন আবার অনেকেই মাস্ক ব্যবহার করছেন না। বেঁচে থাকতে হলে মাস্ক পড়তে হবে। মাস্ক ছাড়া বের হলে কিন্তু আইনগত ব্যবস্থা নেবারও নির্দেশ আসছে। হাত ধোয়ার দিকেও কিন্তু খেয়াল রাখতে হবে। নারায়ণগঞ্জে পূজা মন্ডপগুলোতে করোনার সতর্কতা থাকতে হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী দুর্ভাগা। বড় কোনো অন্যায় করেছি আমরা। নাহলে শীতলক্ষ্যা নদীতে কেন ব্রিজ হয় না। আমাদের কোষা নৌকাতে মারামারি করে নদী পার হতে হয়। অথচ ব্রিজ দুইটা হওয়ার কথা। নারায়ণগঞ্জে ডবল রেললাইন হচ্ছে। এখন আবার রেললাইন উপর দিয়ে যেতে হবে বলে দাবি উঠেছে। দেখা যাক কী হয়।’
উপস্থিত অন্যান্য ব্যক্তিদের বক্তৃতায় দেওভোগের ঐতিহ্যবাহী জিউস পুকুর প্রসঙ্গে সেলিম ওসমান বলেন, ‘জনপ্রিতিনিধিদের সাথে আলোচনায় বসাটা জরুরি। আলোচনায় বসলেই সমাধান হবে। খুব গরম গরম বক্তৃতা শুনলাম জিউস পুকুর নিয়ে। জিউস পুকুর কেউ নিয়ে যায়নি। দুই পক্ষ আলোচনায় বসতে পারলে আদালত সিদ্ধান্ত দিতে পারবে এই পুকুরের মালিক কারা।’
নতুন পালপাড়া পূজা কমিটির সভাপতি এডভোকেট মন্টু ঘোষের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নারায়ণগঞ্জ জেলা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার মোহাম্মদ আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা, সিনিয়র সহসভাপতি চন্দন শীল, এফবিসিসিআই পরিচালক প্রবীর কুমার সাহা, নারায়ণগঞ্জ চেম্বারের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, ১৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সফিউদ্দিন প্রধান, ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাজমুল আলম সজল, ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকু, নারী কাউন্সিলর শারমীন হাবিব বিন্নি, নারায়ণগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দীপক কুমার সাহা, সাধারণ সম্পাদক শিখন সরকার শিপন, মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অরুন কুমার দাস প্রমুখ।

Please follow and like us: