প্রশাসনের ছত্রছায়ায় হিজলায় ধরা হচ্ছে ঝাকে ঝাকে মা ইলিশ

হিজলা প্রতিনিধি: ২২ দিনের কঠোর নিষেধাক্কা থাকলেও রাতের আধারে ধরা হচ্ছে মা ইলিশ৤ ইলিশের প্রজোনোন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষায় সরকার ২২ দিনের কঠোর নিষেধাগ্যা জারি করেছেন৤ উক্ত সময়ের মধ্যে নদীতে সকল প্রকার মাছ ধরা থেকে বিরত থাকতে জেলেদের প্রতি কঠোর বার্তা প্রদান করা হয়েছে৤ এ আইন অমান্য কারীদের ১ থেকে ২ বছরের সর্বচ্চ জেল হতে পারে৤ কিন্ত তারপরও গভির রাতে ঝাকে ঝাকে মারা হচ্ছে মা ইলিশ৤ বিভিন্ন জেলে পল্লি ঘুরে নিজের পরিচয় গোপন রেখে কি ভাবে এতো কঠোর নিষেধাগ্যা থাকার পরও আপনারা মাছ শিকার করেন৤ এমন প্রশ্ন করার পরে নিজেদের কে বিব্রত বোধ করেন৤ আমার জানার আগ্রহ দেখে কিছু জেলে নাম প্রকাশ না করার সর্তে আমাদের কে বলেন আমার সাধারণ জেলেরা নিষেধাগ্যার ভিতরে মাছ শিাকার করতে না চাইলেও কিছু জেলে নেতা আমাদের কে মাছ শিকার করতে বাধ্য করেন, সকল প্রকার নিশ্চয়তা আস্বাশ দিয়ে ৤ কি? নিশ্চেয়তা জানতে চাইলে তারা ভয়ংকর তথ্য দিতে শুরু করেন৤ তাদের কথা শুনে আমি নিজেই অভাগ, এ যেন শশ্যের ভিতরে ভূত৤ তারা বলেন প্রতি রাতে এক একটি জেলেদের কাছ থেকে ৪০০০-৫০০০/- টাকা নিয়ে আমাদের গভির রাতে নিদিষ্ট সময় মাছ শিকারের সুযোগ করে দেয় এতে প্রশাসনের সকল অভিজানীক টিম জরিত থাকেন৤ জেলে নেতারা আমাদের কাছ থেকে উক্ত টাকা নিয়ে প্রশাসনের দৈনিক ডিউটিরত সকল অফিসারদের মোটা অংকের টাকা দিয়ে মেনেজ করে ফেলে৤ বিনিময় এক এক জেলে নেতার আন্ডারে ৩0-৪০ টি জেলে মাছ শিকার করে ভিবিন্ন নদীর নিদিষ্ট বাঁকে বাঁকে৤ ভিবিন্ন টিম তা জানতে চাইলে কোর্স গার্ড নৌ-পুুলিশ ও সংস্লিস্ট সকল টিম ভিবিন্ন ভাবে জেলে নেতাদের ফোনে আপডেট দেয়৤ যে তাদের টিমএখন কোথায় আছে কত দূর আছে৤ তখন জেলে নেতারা আবার স্ব স্ব জেলেদের ফোনে জানিয়ে দেয়৤ ভিবিন্ন সময় ভিবিন্ন আপডেট৤ যখন কোন বড় অফিসার নদীতে পরিদর্শনে নামে তাও আমাদের ফোনের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়৤ আমরা তখন সূর্য উঠার আগেই ভিবিন্ন চরের ছোট ছোট খালের ভিতরে লুকিয়ে পরি৤ তাহলে শুধু এই ফোনের মাধ্যমেই আপনাদের কে সহযোগিতা নামে প্রতি রাতে আপনাদের কাছ থেকে ৪০০০-৫০০০/- টাকা নেয়? প্রতি রাতে কত টাকার মাছ শিকার করেন এমন প্রশ্নের জভাবে বলেন প্রতি রাতে ঠিকমত মাছ শিকার করতে পারলে ৩০০০০-৪০০০০/- টাকার মাছ শিকার করতে পারি৤ মাছ শিকার করে বিক্রি করেন কোথায় এমন প্রশ্নের জভাবে তার জানান যারা আমাদের কে দিয়ে মাছ শিকার করান তারাই আমাদের থেকে মাছ কিনে নেন এবং গোপনে বিভিন্ন চরের বিভিন্ন যায়গায় মাছ মজুদ করেন৤ অভিজান শেষে তারা আবার এই মজুদ করা মাছ দেশের বিভিন্ন আরোদে নিয়ে বিক্রি করে মোটা অংকের টাকা লাভ করে থাকেন৤

Please follow and like us: