বলিউডে টিকতে না পারার কারণ জানালেন সামিরা রেড্ডি

বলিউডে যাত্রার শুরুর দিকে বেশ কিছু জটিল অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হন সামিরা রেড্ডি। সম্প্রতি ভারতের এক সংবাদমাধ্যমের কাছে কাস্টিং কাউচ সম্পর্কে নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন তিনি।

সংবাদমাধ্যমের কাছে তিনি বলেন, আমি একটি সিনেমায় কাজ করছিলাম। হঠাৎ আমাকে বলা হল যে একটি চুম্বনের দৃশ্য যোগ করা হয়েছে। প্রথমে এই দৃশ্যটি ছিল না। তাই পরে দৃশ্যটি যোগ করায় আমাকে খুব ঝামেলায় পড়তে হয়।

পরবর্তীতে নির্মাতারা তখন আমাকে বোঝানোর জন্য বলেছিলেন, তুমি তো মুসাফির সিনেমায়ও চুম্বন দৃশ্য করেছো। আমি বলেছিলাম, তার মানে এটা নয় যে, আমি সব সিনেমাতেই করবো। এরপরে সে নির্মাতারা আমায় বলেছিলেন বিষয়টি দেখো এবং মনে রেখো তুমি কিন্তু সিনেমা থেকে বাদ পড়তে পারো।

আরও একটি ঘটনার কথা শেয়ার করেছেন তিনি। এক পুরুষ অভিনেতা সামিরাকে একঘেয়ে এবং অমিশুক বলে ডেকেছিলেন। সামিরা বলছেন, একজন অভিনেতা আমায় বলেছিলেন, ‘তুমি খুব অমিশুক। তুমি মজা করতে পারো না। আমি জানি না তোমার সঙ্গে আগামিতে আর কোনো সিনেমায় অভিনয় করবো কিনা। ’

এরপরে আমি আর তার সঙ্গে কোনো সিনেমায় অভিনয় করিনি। পুরো খেলাটাই সাপলুডুর মতো। তাই একজনকে জানতে হবে যে সাপেদের চারপাশ দিয়ে ঘুরে বেরিয়ে নিজের রাস্তা কি করে তৈরি করতে হয়। শুটিং হয়ে গেলে আমি কখনোই আমার সহ-অভিনেতাদের সঙ্গে পার্টি করতাম না। বা বেড়াতেও যেতাম না। তার চেয়ে বরং আমি বাড়ি ফিরে টিভি দেখতাম। আমি সেভাবে কখনই মানুষের সঙ্গে মিশিনি। জানি এগুলো সিনেমায় কাজ পেতে অনেকটাই সাহায্য করে। আমার এই নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। এই ইন্ড্রাস্ট্রি এভাবেই চলে।

সামিরা আরও একটি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন যে, চেহারার জন্য তাকে বলিউডে বহু কথা শুনতে হয়েছে। বলিউডের টিকে থাকার তিনি চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু পারেননি।

তিনি বলেন, আমায় বলা হয়েছিল আমার গায়ের রং খুব চাপা। আমি খুব বেশি লম্বা আর আমার চেহারা বড়। পাশের বাড়ির মেয়ের চেহারার সঙ্গে আমার কোনো সাদৃশ্য নেই। আমি অনবরত চেষ্টা করে গেছি মানিয়ে নেওয়ার। সত্যিই খুব ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলাম।

Please follow and like us: