থানার ভেতর পুলিশ মেরেও মুচলেকায় ছাড় পেলেন ফাতেমা মনির

রুদ্রবার্তা২৪.কম: থানার ভেতর ঢুকে দুই পুলিশ কনস্টেবলকে পিটিয়েছেন সদর উপজেলার নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির। এ ঘটনায় আটক হন তিনি। মামলারও প্রস্তুতির কথা জানান ফতুল্লা থানার ওসি। তবে ঘটনার কয়েক ঘন্টা পরই সরকারদলীয় নেতাদের হস্তক্ষেপে মুচলেকায় ছাড় পান ফাতেমা মনির। এ নিয়ে বিভিন্ন মহলে চলছে তুমুল আলোচনা।
থানা সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে থানায় আটক এক আসামিকে দেখতে আসেন ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির। পরে আটক আসামিকে ছাড়িয়ে নিয়ে যেতে চান। এতে বাধা দিলে থানা হাজতের দায়িত্বে থাকা কনস্টেবল কুদ্দুস ও কালামকে মারধর ও লাঞ্চিত করেন ফাতেমা মনির। এ ঘটনায় তাকে আটক করা হয়।
ঘটনার কিছুক্ষন পরই থানায় ছুটে আসেন ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ্ নিজামসহ বেশ কয়েকজন নেতা। পরে তাদের মুচলেকায় ছাড়া পান সদর উপজেলার নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির।
থানার ভেতর পুলিশকে পিটিয়েও জনপ্রতিনিধির ছাড় পাওয়ার ঘটনাটি বিভিন্ন মহলে বেশ সমালোচিত হয়েছে। অনেকেই বলছেন, থানার ভেতর পুলিশ সদস্যকে পিটিয়েও ছাড় পাওয়ার এমন ঘটনা খারাপ দৃষ্টান্ত হয়ে রইলো।
এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম হোসেন বলেন, আসলে মারধর নয়। আমার পুলিশ সদস্যের সাথে দুর্ব্যবহার এবং উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করেছিলেন তিনি। এ ঘটনায় তাকে আটক করা হয়। পরে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের জিম্মা ও মুচলেকায় তাকে ছাড়া হয়েছে।

Please follow and like us: