সেই যুবলীগ নেতা শ্যামল বহিস্কার

রুদ্রবার্তা২৪.কম: ফতুল্লায় কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় মিমাংসা করার নামে ধর্ষককে পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করার অপরাধে গ্রেপ্তার হওয়া যুবলীগ নেতা আনিছুর রহমান শ্যামলকে সাময়িক ভাবে বহিস্কার করা হয়েছে। আনিছুর রহমান শ্যামল ফতুল্লার কাশিপুর ইউনিয়ন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ছিলেন। তাকে যুবলীগ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে।
বুধবার (২২ জানুয়ারী) কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের স্বাক্ষরিত শ্যামলের বহিস্কারের আদেশ দেয়া হয়।

বহিস্কার আদেশে বলা হয়, ফতুল্লার কাশিপুরে এক কিশোরীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষককে বাঁচাতে মিমাংসা করার কথা বলে কিশোরীসহ তার মাকে শ্যামলের অফিসে ঢেকে নিয়ে যায়। আর সেখানে মিমাংসার নামে ধর্ষককে বাঁচাতে কিশোরীর মাকে হুমকি ধামকি দিয়ে ধর্ষককে পালিয়ে যেতে সহায়তা করে।

আর এ ঘটনায় ধর্ষণের মামলায় আনিছুর রহমান শ্যামলকে পুলিশ গ্রেপ্তার করা হয় এবং ধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়। আর এ মর্মে পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে প্রাথমিক অনুসন্ধানে প্রমানিত হয়।

আর সংগঠনের শৃঙ্খলা পরিপন্থি কর্মকান্ডে সংশ্লিতার অভিযোগে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সিদ্ধান্ত মোবেক আনিছুর রহমান শ্যামলকে সংগঠন থেকে সাময়িক ভাবে বহিস্কার করা হয়েছে। একই সাথে কেন তাকে স্থায়ী ভাবে বহিস্কার করা হবে না মর্মে সংগঠনের চেয়ারম্যান/সাধারণ সম্পাদক এর বরাবর তার লিখিত জবাব প্রদানের জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলো।

ফতুল্লা থানা যুবলীগের সভাপতি মীর সোহেল আলী জানান, শ্যামলকে বহিস্কারের আদেশের বিষয়ে কেন্দ্রীয় কমিটি আমাকে অবগত করেছেন।

Please follow and like us: