মেডিপ্লাসে ভুল চিকিৎসা পুত্র সন্তান হারালেন আফসানা

একেতো সংসারে অশান্তি। তার উপর পুত্র সন্তান জন্ম দিয়েও তাকে হারাতে হল ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায়। আফসানা আক্তারের দুঃখের দাম্পত্য জীবনে দুঃখ আরো বাড়লো। পুত্র সন্তান পেয়েও হারালেন।

কালীরবাজারে মেডিপ্লাস নামের একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় পুত্র সন্তানটি মারা যায়। তবে শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে চাইছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

তাদের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, অতিরিক্ত গুড়োদুধ খাওয়ানোর ফলে নবজাতকটি মারা গেছে। ফলে নবজাতকের এ মৃত্যুটি নিয়ে ধু¤্রজালের সৃষ্টি হয়েছে। জন্মের একদিন পরে সোমবার (৭ অক্টোবর) রাতে হাসপাতালে মারা যায় নবজাতকটি।

নবজাতকের পিতা রাকিব হোসেন বন্দর শাহী মসজিদ এলাকার বাসিন্দা। স্ত্রী আফসানাকে সিজারের জন্য ৫ অক্টোবর ওই বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করান শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

রাকিব হোসেনের অভিযোগ, ডাক্তার ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় তার পুত্র সন্তানের মৃত্যু হয়। তিনি জানান, রোববার দুপুরে তার স্ত্রী আফসানা আক্তার একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেন। জন্মের পর থেকে শিশুটির অবস্থার অবনতি হতে থাকে। কিন্তু হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার ও কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নেয়নি। একদিন পর সন্তানটি মারা যায়।

রাকিব হোসেন আরও জানান, অধ্যাপক ডা. আহসানউল্লাহ আল-বাকীর তত্ত্বাবধানে তার শিশুর চিকিৎসা চলছিল। অধ্যাপক ডা. আহসানউল্লাহ আল-বাকী নারায়ণগঞ্জের ল্যাবএইড চাষাড়াস্থ অফিসে বসেন। ওই প্রতিষ্ঠানে মঙ্গলবার বিকালে ফোন দিয়ে ডাক্তারের মোবাইল ফোন নম্বর চাইলে দিতে অস্বীকৃতি জানান ল্যাবএইড কর্তৃপক্ষ।

Please follow and like us: