স্মিথের সেঞ্চুরিতে মান রক্ষা অস্ট্রেলিয়ার

 স্পোর্টস ডেস্ক: টেস্ট ক্রিকেটের সবচেয়ে পুরনো ও ঐতিহ্যবাহী দ্বৈরথ অ্যাশেজ। আর তা দিয়েই শুরু হলো টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের উদ্বোধনী আসর। ঐতিহাসিক এই দ্বৈরথে প্রত্যাবর্তনটা নিজের মতো করে রাঙিয়ে নিলেন অজি ক্রিকেটার স্টিভেন স্মিথ। যেই অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংসে ১২২ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে শেষ দেখছিল, সেখানে তাদের মান রক্ষা হয়েছে এক স্মিথের প্রতিরোধে!

অথচ প্রথম টেস্টের প্রথম দিনটা হতে পারতো ইংল্যান্ডেরই। স্বাগতিকদের হতাশা বাড়িয়ে দিনটা নিজের করে নিয়েছেন স্মিথ। প্রতিরোধ দিয়ে খেলেছেন ১৪৪ রানের অনবদ্য এক ইনিংস। তাতে ছিল ১৬টি চার ও দুটি ছয়।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ২৮৪ রানে তার উইকেট পতনের পরই থেমেছে অজিদের প্রথম ইনিংস। ততক্ষণে ঘুরে দাঁড়িয়ে নিরাপদ দূরত্বে পৌঁছে যায় সফরকারীরা। টেস্টে স্মিথের এমন প্রত্যাবর্তন হলো ১৬ মাস পর। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বল টেম্পারিং কাণ্ডে নিষিদ্ধ হয়ে ভীষণ সমালোচিত হয়েছিলেন। দুয়োর মুখোমুখি হয়েছেন বার বার! তার জবাবটা মাঠে দিলেন দলের মান রক্ষা করে। তার মতো ব্যানক্রফট, ওয়ার্নাররা প্রত্যাবর্তন করলেও তাদের ইনিংসে ছিল না কোনও রঙ। বরং এককভাবে রঙ ছড়িয়েছেন শুথু স্মিথ।

তার এই রঙ ছড়ানো ইনিংসের আগে পুরনো একটা পরিসংখ্যান উল্লেখযোগ্য। শেষ অ্যাশেজে সাত ইনিংসে ৬৮৭ রান করে ছিলেন তিনি। সেই একই মেজাজের আভাসটা দিচ্ছেন এবারও! অ্যাশেজে সর্বাধিক সেঞ্চুরির তালিকায় যৌথভাবে চারে চলে এসেছেন আজ। এখন ৯টি সেঞ্চুরি তার, পুরো ক্যারিয়ারে যা ২৪তম। অবশ্য তার সঙ্গে ৯টি সেঞ্চুরি আছে যাদের তাদের চেয়ে কম ইনিংস খেলেছেন তিনি। সর্বাধিক ১৯টি ডন ব্র্যাডম্যানের।

এমন ইনিংস খেলার পথে অবশ্য শেষ দিকের সঙ্গীদের ভূমিকাও কম নয়। পিটার সিডলের সঙ্গে ৮৮ রানের জুটি গড়েছেন। তারপর শেষ উইকেটে ৭৪ রানের জুটি গড়েন নাথান লায়নের সঙ্গে। সিডল ৪৪ রানে ফিরলেও লায়ন অপরাজিত ছিলেন ১২ রানে।

স্মিথের দিনে অবশ্য বল হাতে আলো ছড়িয়েছেন ইংল্যান্ডের স্টুয়ার্ট ব্রড। ৮৬ রানে নিয়েছেন ৫ উইকেট। তিনটি ক্রিস ওকসের। একটি করে নিয়েছেন মঈন আলী ও বেন স্টোকস।

অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস শেষ হলে প্রথম দিনের শেষ ভাগে নামে স্বাগতিকরা। প্রথম ইনিংস বিনা উইকেটে ১০ রানে শেষ করেছে ইংল্যান্ড।

Please follow and like us: