আগষ্ট মাস শোকের মাস, আমরা এই শোককে শক্তিতে পরিনত করব : সেলিম ওসমান এমপি

রুদ্রবার্তা২৪.কম: নারায়ণগঞ্জ ৫ আসনের এমপি বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সেলিম ওসমান বলেছেন, আমি ১৭ বছর বয়সে মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহন করেছি। আগষ্ট মাস শোকের মাস। আমরা এই শোককে শক্তিতে পরিনত করব। শনিবার সকাল ১০টায় পুরান বন্দর চৌধূরীস্থ নাসিম ওসমান মডেল হাইস্কুলে উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর কর্তৃক আয়োজিত ফলদ বৃক্ষ মেলা উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেছেন।
বন্দর উপজেলা পরিষদের র্নিবাহী কর্মকর্তা মৌসুমী হাবিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ আব্বাস উদ্দিন, বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আতাউর রহমান মুকুল ও জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক ও জেলা পরিষদের সদস্য আবু জাহের।
ফলদ বৃক্ষ মেলা উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বন্দর থানা অফিসার ইনর্চাজ আবুল কালাম, জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক আজিজুল হক আজিজ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এডঃ মাহামুদা আক্তার, কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব দেলোয়ার প্রধান, বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন, ধামগড় ইউপি চেয়ারম্যান মাছুম আহাম্মেদ, মুছাপুর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী মাকসুদ রহমান, মদনপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম.এ সালাম, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জাপানেত্রী আলেয়া বেগম, জাপা নেতা রোটারিয়ান গিয়াস উদ্দিন চৌধূরী, বন্দর পল্লী বিদুৎত জোনাল অফিসের ডিজিএম আশরাফুল আলম খান, বন্দর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক সিরাজ উদ্দিন আহাম্মেদ ও বন্দর থানা ছাত্রলীগ নেতা আরাফাত কবীর ফাহিম প্রমুখ।
সেলিম ওসমান এমপি আরো বলেন, ১টি গাছকে শিশুর মত লালন পালন করে তাদেরকে বাঁচিতে তুলতে হবে। কারন গাছ আমাদের অক্সিজেন দেয় এবং গাছ আমাদের প্রকৃত বন্ধু। আমরা ওই গাছ রোপন করে আমাদের এই সুন্দর দেশটাকে সাঁজাব। এখানে ২০ হাজার ফলদ, বনজ ও ঔষধী গাছ বিতরণ করা হবে। এগুলো নষ্ট হলে চলবে না। আমি স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের প্রতি অনুরোধ করব তোমরা বেশি বেশি করে লেখাপড়া পাশাপাশি খেলাধূলা ও বৃক্ষ রোপনের প্রতি মনযোগি হবে।
তিনি আরো বলেন, নাসিম ওসমান মডেল হাইস্কুল শুভ উদ্ধোধন অনুষ্ঠানে বন্দরবাসী রের্কড সৃষ্টি করেছে। কারন সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদের ভাষন শুনার জন্য অনুষ্ঠানস্থলে ৪৫ হাজার লোক ও বাহিরে ১৫ হাজার লোকের সমাগম ঘটেছিল। আমি শান্তির কথা বলছি। আমি ও সিটি মেয়র জনগনের জন্য কাজ করছি। নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নে আমরা পরস্পরকে সাহায্য করব। আজ থেকে তোমরা সোনার বাংলা গড়ার জন্য এক সাথে কাজ করবে।

Please follow and like us: